পৌষের বিদায়ক্ষনে ফকিরহাটে জেকে বসেছে শীত ঃ বিপর্যস্ত জনজীবন

0
30
পৌষের বিদায়ক্ষনে ফকিরহাটে জেকে বসেছে শীত ঃ বিপর্যস্ত জনজীবন


সুমন কর্মকার, বাগেরহাট ঃ পৌষের বিদায়ক্ষনে সারা দেশে চলছে শৈত্যপ্রবাহ। কুয়াশার চাদর ঢেকে রেখেছে সব কিছু। টের পাওয়া যাচ্ছে প্রকৃতির সঙ্গে মানুষের অবিচ্ছেদ্য-নিগূঢ় সম্পর্ক। আকস্মিক মৃদু শৈত্যপ্রবাহের খেটে খাওয়া, দিনমজুর ও ছিন্নমুল মানুষের জীবনে নেমে এসেছে চরম দুর্ভোগ। মানুষের সরব কর্মজীবনও ছন্দ হারিয়েছে। দেশের অন্যান্য স্থানের ন্যায় বাগেরহাটের ফকিরহাটে জেকে বসেছে তীব্র শীতে। শৈত্যপ্রবাহে বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে জনজীবন। সকাল তখন প্রায় আটটা। তবু মনে হচ্ছে চারদিকে অতল অন্ধকার। ঘন কুয়াশায় আচ্ছন্ন। মেঘের সাথে মিলেছে হিমেল হাওয়া। সকাল থেকে বিকাল পর্যন্ত মাঝে মাঝে সূর্য উঠলেও তা থাকছে ক্ষনস্থায়ী। ওদিকে সূর্যমামা তড়িঘড়ি টুপ করে ডুব দেয়। সন্ধা হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে শুর হয় হুহু কাঁপন। বিকেলের পর জরুরী কাজ ছাড়া ঘর ছেড়ে বের হয়না সাধারন মানুষ। এদিকে শীত যতই বাড়ছে শীতের কাপড়ের মুল্য ততই বৃদ্ধি পাচ্ছে। বিপাকে পড়েছে কমলমতি শিশু, বৃদ্ধ সহ শ্রমজীবি মানুষ। শীতবস্ত্রের অভাবে অতিকষ্টে রয়েছেন তারা। অনেক স্থানে দেখা গেছে, খড়-কুটো জ্বালিয়ে শীত নিবারনের চেষ্টা করছেন অনেকেই। সরেজমিনে দেখা যায়, ফকিরহাট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স সহ অন্যান্য চিকিৎসালয়ে জ্বর, ডায়রিয়া, আমাশয় ও নিউমোনিয়া শিশু সহ বিভিন্ন বয়সের রোগীদের ভীড় বাড়ছে হাসপাতালে। এ বিষয়ে বিভিন্ন চিকিৎসাদের সাথে আলাপকালে তারা জানান, এ অবস্থা চলতে থাকলে শীতজনিত সর্দি-জ্বর, খোসপাঁচড়া, শ্বাসকষ্ট, ডায়রিয়া, আমাশয়, নিউমোনিয়া প্রভৃতি রোগের আশংকা রয়েছে। চিকিৎসাদের পরামর্শে বলেন শিশুদের জন্য মায়েদের সচেতন থাকতে হবে ও বেশি করে পানি পান করাতে হবে। এছাড়া সকল বয়সের মানুষের বেশি বেশি পানি পান করতে হবে। এবং সব সময় গরম কাপড় পরিধান করতে হবে। অপরদিকে, ঘন কুয়াশার ফলে চলাচলে বিঘœ ঘটছে দুরপাল্লার যানবাহন। এতে সড়ক-মহাসড়কে যানবাহনের দূর্ঘটনা বৃদ্ধির শঙ্কায় যাতায়াতব্যাবস্থা বিঘœ ঘটছে।



Source link

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here