প্রতিটি উপজেলায় কারিগরি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান হবে : প্রধানমন্ত্রী

0
3
প্রতিটি উপজেলায় কারিগরি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান হবে : প্রধানমন্ত্রী


স্টাফ রির্পোটার : দুর্নীতি নয়, মানুষের ভাগ্যোন্নয়নে কাজ করে যাচ্ছি। মানুষ যেন গ্রামে বসে সব চাহিদা পূরণ করতে পারে সে লক্ষ্যেই গ্রামকে শহর হিসেবে গড়ে তুলতে কাজ করছে সরকার। তাই প্রতিটি উপজেলায় একটি কারিগরি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গড়ে তোলা হবে।

শনিবার (১৫ সেপ্টেম্বর) ইনস্টিটিউশন অব ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স বাংলাদেশের (আইডিইবি) ২২তম জাতীয় সম্মেলনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে এ কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমরা কোথায় ছিলাম, কী অবস্থায় ছিলাম, সেটা কেউ জানেও না। এই প্রজন্ম সেসব জানে না। কিন্তু আজ আমরা বিভিন্ন ফসল উৎপাদনে সারা বিশ্বে শীর্ষদের তালিকায় আছি। মাছ থেকে শুরু করে ধান-সবজি উৎপাদনে বিশ্বের কোথাও তৃতীয়, কোথাও চতুর্থ-পঞ্চম অবস্থান এখনও আমাদের। গত নয় বছরে বিভিন্ন প্রকল্প হাতে নিয়ে দেশকে এ অবস্থায় নিয়ে যাওয়া হয়েছে।

দেশের মানুষের সক্ষমতা বৃদ্ধির কথা জানিয়ে তিনি আরও বলেন,  কোনও সরকার কোনও দেশে ১২৩ ভাগ বেতন বাড়াতে পারে কিনা আমার জানা নেই। আমরা তা করেছি। অনেক প্রকল্প হাতে নিয়েছি, যার সুফল বাংলাদেশ পাচ্ছে। দেশ যতো এগিয়ে যাবে, যত উন্নত হবে, তত বেশি সুফল ভোগ করা যাবে। তাই এ অগ্রযাত্রা অব্যাহত রাখতে হবে।

এর আগে প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন গণভবনে জাতীয় পতাকা উত্তোলন শেষে বেলুন এবং পায়রা উড়িয়ে তিন দিনব্যাপী এ সম্মেলনের উদ্বোধন ঘোষণা করেন তিনি। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রীকে স্বাগত জানায় আইডিইবির তৈরি ‘মি. টিভেট’ নামের একটি রোবট। এ সময় রোবটটির সঙ্গে কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী।

এ সম্মেলনে বিশ্বের ৭ টি দেশের অতিথিসহ ছয় হাজারেরও বেশি আমন্ত্রিত অতিথি অংশ নিচ্ছেন্। এছাড়াও ইঞ্জিনিয়ারিং ইনোভেশন এক্সপোতে ৫২ বিষয়ে বিভিন্ন আবিষ্কার প্রদর্শন করা হবে।সেই সঙ্গে মুক্তিযুদ্ধ, রাজনীতি, সমাজসেবা, কারিগরি শিক্ষা ও সংস্কৃতিতে অবদান রাখার জন্য আইডিবির সদস্য তিনজন বিশিষ্ট প্রকৌশলীকে স্বর্ণপদক দেওয়া হবে।

চতুর্থ শিল্প বিপ্লবের চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় বিশ্বমানের ‘টেকনিক্যাল ভোকেশনাল এডুকেশন ট্রেইনিং’ প্রতিপাদ্য সামনে রেখে আজ শনিবার এই সম্মেলন শুরু হয়েছে। চলবে আগামী ১৭ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত।



Source link

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here